একটি ভুল সিদ্ধান্তে কাতার ও আমিরাতে করোনার ভয়ংকর রূপ।

গত ২৪ ঘন্টায় কাতার ও আমিরাতে করোনা আক্রান্ত হয়েছে যথাক্রমে ২৫০ ও ২৪১ জন।

কাতার ও আমিরাতে করোনা

করোনা ভাইরাসের প্রথম খোঁজ মিলেছিল চিনে৷ সেখানে তা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছিল৷ চিন থেকে সেই মারণ ভাইরাস এখন বিশ্বের সিংহভাগ দেশে ছড়িয়ে পড়েছে৷  মধ্যপ্রাচ্যও যায়নি বাদ। আরব আমিরাত ও কাতেরেও ছড়িয়ে পরেছে করোনা। বৃদ্ধি পাচ্ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। আমিরাতে আক্রান্ত ১৫০০+ এবং কাতারে ১৩০০+। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন আক্রান্ত হয়েছে আমিরাতে ২৪১ জন এবং কাতারে ২৫০ জন। তবে করোনা নিয়ন্ত্রণে রাখার সুযোগ ছিল আমিরাত ও কাতারের। কিন্তু সামান্য ছাড় দেয়া হয়েছিল করোনা প্রতিরোধে আর করোনা নিচ্ছে সে ছাড়ের সুযোগ। উভয়দেশে নির্দিষ্ট কয়েক ঘন্টার জন্য লকডাউন দেয়া হয়েছিল যা ছিলনা করোনা প্রতিরোধের জন্য যথেষ্ট।
করোনা আতঙ্কে বিমানের জানালা দিয়ে লাফ দিলেন পাইলট

লকডাউনে বন্ধ ছিল জনসমাগম, বন্ধ ছিল মসজিদ, বন্ধ ছিল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান । তবে খোলা ছিল অসংখ্য দোকান ও ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান এবং জনসাধারণ আতংক সত্ত্বেও যোগ দিয়েছিল কাজে।  তবে মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম এই দুইটি দেশ করোনাকে খুবই শক্তভাবে নিলেও হালকা ছিল প্রতিরোধ ব্যবস্থা। খুব বেশি ক্ষতি হইত না, যদি ২ সপ্তাহের জন্য ঔষধ ও প্রয়োজনীয় খাবার দোকান ছাড়া বাকী সব কার্যকম বন্ধ রাখত।

করোনার আপডেট

One thought on “একটি ভুল সিদ্ধান্তে কাতার ও আমিরাতে করোনার ভয়ংকর রূপ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *