হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির প্রবেশপথে কোরআনের আয়াত

Harvard qouted verse of The Quran
আমরা মুসলমানরা বিশ্বাস করি যে, ইসলাম হল মহান আল্লাহ তায়ালার বাণী। এটি ধর্মটি গ্রন্থটি হচ্ছে মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে যা নির্ভুল। এই গ্রন্থে কোন সন্দেহ নেই, এটি মহান বিশ্বের স্রষ্টা পক্ষ থেকে। এবং এটি আমাদেরকে বেঁচে থাকার সঠিক উপায় শেখায়।

ইসলামে আইন ও ন্যায়বিচার এর স্থান হচ্ছে সর্বোচ্ছ পর্যায়ে এবং কোরআন হচ্ছে মানব কল্যানে পরিপূর্ণ একটি গ্রন্থ। ইসলামে অন্যায়ের কোন স্থান নেই।

সারা বিশ্বও এই সত্যগুলি স্বীকার করে এবং কোরআনে যা আছে তাকে শ্রদ্ধা করে। যদিওবা তাদের অবস্থান বিপরীত।

Harvard Law School

হার্ভার্ড আইন স্কুল, মর্যাদাপূর্ণ প্রতিষ্টানটির অনুষদের গ্রন্থকারের প্রবেশপথে সূরা নিসার একটি আয়াত তুলে ধরেছে। এবং এই আয়াতটিকে সর্বকালের ইতিহাসের অন্যতম অভিব্যক্তি (বাণী) হিসেবে বর্ণনা দিয়েছে।

সূরা নিসার ১৩৫ নং আয়াতটিতে মানুষকে ন্যায়বিচারের প্রতি অবিচল থাকার কথা বলা হয়েছে। আয়াতটি নিচে তুলে ধরা হল –

হে মুমিনগণ! আল্লাহর উদ্দেশ্যে সাক্ষ্য দাঞ্জারী ও সুবিভার প্রতিষ্টাতা হও, যদিওবা এটা তোমাদের নিজের অথবা মাতা-পিতা ও আত্নীয়-স্বজনের প্রতিক্ল হয়। যদিও সে সম্পদশালী কিংবা দরিদ্র হয়, তাহলে আল্লাহ তায়ালা তার জন্য যথেষ্ট। সুতারাং, সুবিচার প্রতিষ্টায় লালসার (নিজের) অনুসরণ করিওনা। যদি তোমরা ঘুরিয়ে পেচিয়ে বল কিংবা পাশ কাটিয়ে যাও (সাক্ষ্য প্রদানে); তাহলে আল্লাহ তায়ালা তোমাদের সমস্ত কর্মের পূর্ণ সংবাদ রাখেন।

এই কোটেশন বা উদ্ধৃতিটি তুলে ধরতে ছাত্র-ছাত্রীরা সুপারিশ করেছিল। এটা অনুষদের প্রবেশপথে টাঙ্গানো তিনটি মূল উদ্ধৃতির মধ্যে একটি।

হার্ভার্ড আইন স্কুল হচ্ছে বিশ্বের বিশিষ্ট আইন স্কুল। এটি হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় এর একটি মর্যাদাপূর্ণ একটি অংশ। হার্ভার্ড আইন স্কুলে রয়েছে বিশ্বের সর্ব বৃহৎ প্রাতিষ্টানিক লাইব্রেরি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *